আন্তর্জাতিক

মমতা সরকারের বিরুদ্ধে কলকাতায় বাম ছাত্র-যুবদের সমাবেশ

অপ্রত্যাশিত মানুষের সমর্থন, ভিড়ের চাপে বদলে গেলো আনিস ইনসাফ সভাস্থল। মঙ্গলবার ধর্মতলায় ছাত্রনেতা আনিস খানসহ সিপিআইএম ছাত্র নেতাদের মৃত্যুর ন্যায়বিচার ও শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতিতে জড়িত দোষীদের শাস্তির দাবিতে সভা হওয়ার কথা ছিল ওয়াই চ্যানেলে। তৈরি করে চেয়ারও সাজানো হয়েছিল। কিন্তু বেলা বাড়তেই সিপিআইএম ছাত্র-যুবসহ সাধারণ মানুষের সমর্থনে মুহূর্তে বদলে গেলো ধর্মতলার চেহারা। আর সেই কারণেই শেষপর্যন্ত সভা সরিয়ে আনা হলো ধর্মতলার মোড়ে ভিক্টোরিয়া হাউজের কাছে। যেখানে সভা করার জন্য পুলিশ প্রশাসনের অনুমতি মেলেনি। কার্যত সেই ভিড়ের চাপে অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে গোটা ধর্মতলা চত্ত্বর। সভায় ছাত্র ও যুবসহ সধারণ মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া মিলেছে।

মাস কয়েক আগে ২১ জুলাইয়ের সমাবেশ করেছিল তৃণমূল। সেখানে ইনসাফ সভার আয়োজন করার অনুমতি চেয়েও পায়নি এসএফআই এবং ডিওয়াইএফআই। 

আনিস খান হত্যা ও আন্দোলনে বসা চাকরিপ্রার্থীদের প্রাপ্য চাকরি দেওয়াসহ একগুচ্ছ দাবি নিয়ে শিয়ালদহ স্টেশন, হাওড়া স্টেশন এবং পার্ক স্ট্রিটে বাম ছাত্র-যুবরা জমায়েত করে। সিপিআইএম ছাত্র-যুব সংগঠনের এই সভার জন্য পুলিশের অনুমতি পাওয়া নিয়ে মঙ্গলবার সকালেই ডিওয়াইএফআইয়ের রাজ্য সম্পাদক মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, ‘পুলিশের অনুমতি দেওয়ার এখতিয়ারই নেই। তবে কমরেডরা আসবেন। জায়গা না হলে মানুষ নিজের জায়গা করে নেবেন। ১২টা বাজতে দিন তার পর দেখবেন।’

বেলা বাড়তেই ধর্মতলা চত্ত্বর উপচে পড়া মানুষের কালো মাথা আর লাল সাদা পতাকায় ছেয়ে গেছে। মুহূর্তের মধ্যে ঢেকে গেলো কালো পিচের রাস্তা।

ছাত্র-যুবদের সভায় বক্তব্য দেন সিপিআইএমের রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম, ডিওয়াইএফআইয়ের রাজ্য সম্পাদক মীনাক্ষী, সিপিআইএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আভাস রায়চৌধুরী, এসএফআইয়ের রাজ্য সম্পাদক সৃজন ভট্টাচার্য, এসএফআইয়ের রাজ্য সভাপতি প্রতীকুর রহমান, এসএফআইয়ের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক ময়ূখ বিশ্বাস, ডিওয়াইএফআইয়ের রাজ্য সভাপতি ধ্রুবজ্যোতি সাহা।

উপস্থিত ছিলেন নিহত ছাত্র নেতা আনিস খানের বাবা সালেম খান। তিনিও সভায় বক্তব্য দেন। সভায় সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম বলেন, পরিবর্তনের নামে আজ ত্রাসের রাজত্ব চলছে। লুঠতন্ত্র চলছে। পুলিসকে বলছি, জাগ্রত জনতার সমানে কোনও জোরাজুরি চলবে না। এটা মনে থাকে যেন। পুলিস বলেছিল ধর্মতলাতে সভা করতে দেবে না। আর আমাদের ছাত্র-যুবরা বলেছিল আমরা ইনসাফ সভা করবই। ইনসাফের লহর ওঠেছে। অনুব্রত, অভিষেক গরু চোর, কয়লা চোরদের হুঁশিয়ারি দেওয়ার জন্য এই সভা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিপদে পড়লেই মোদিজির বন্দনা করেন। সরাসরি আত্মসমর্পণ করেন। আমরা মাথা নোয়াই না। কলকাতা পুলিসকে বলব, আমরা তো একটা দিকই চেয়েছিলাম। এবার আপনারা ঠেলা সামলান। ন্যায় চাইতে আজ আমরা রাজপথে। শিক্ষাকে বাঁচাতে লড়াই চলবে। কালীঘাট পর্যন্ত এই আওয়াজ যাক। এই পশ্চিমবঙ্গ দালাল, সাম্প্রদায়িক, চোর-জোচ্চর, ডাকাতদের জন্য নয়। আমাদের ছেলেমেয়েদের গাড়ি চাপা দিয়ে মেরেছে। পুলিশ কোনও অভিযোগ নেয়নি। আনিস খানকে খুন করেছে। কোনও অভিযোগ নেয়নি। হাঁসখালিতে খুনের ঘটনায় নিহতের বাড়ির লোকজনকে হুমকি দেওয়া হয়েছে। আজ আনিস খানের বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হচ্ছে। পুলিশকে বলছি, কীভাবে এফআইআর লিখতে হয়ে তা আমরা শিখিয়ে দেব।

এদিকে দীর্ঘ সময় ধরে চলা সিপিআইএম ছাত্র-যুবদের ইনসাফ সভার কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়। এই প্রসঙ্গে সেলিম বলেন, ‘শ্রীলঙ্কায় বেকার ছেলেমেয়েরা চাকরির দাবিতে প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতি ভবনের সামনে ধরনা দিচ্ছিল। তাদের ওপরে গুলি চালিয়ে দিয়েছিল সেখানকার পুলিশ। সেখানকার রাষ্ট্রপতিকে লোকজন গিয়ে পাড়াছাড়া করে দিয়েছে। পুলিশ তো সেখানেও ছিল। এখন দেখি অভিষেকের বাড়ির সামনে পুলিশের সাঁজেয়া গাড়ি পাহারা দিচ্ছে। ইডি আসার ভয়ে রাস্তার অর্ধেক ঘিরে রেখে দিয়েছিল। তখন ট্রাফিক জ্যামের কথা মনে পড়ে না?’

Source link

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
Stream TV Pro News - Stream TV Pro World - Stream TV Pro Sports - Stream TV Pro Entertainment - Stream TV Pro Games - Stream TV Pro Real Free Instagram Followers PayPal Gift Card Generator Free Paypal Gift Cards Generator Free Discord Nitro Codes Free Fire Diamond Free Fire Diamonds Generator Clash of Clans Generator Roblox free Robux Free Robux PUBG Mobile Generator Free Robux 8 Ball Pool Brawl Stars Generator Apple Gift Card Best Android Apps, Games, Accessories, and Tips Free V Bucks Generator 2022